Lead Newsতথ্যপ্রযুক্তি

৯ জুনের পর বন্ধ হয়ে যাবে অবৈধ ফোন, চুক্তি সাক্ষরিত

অবৈধ পথে দেশে আসা, ক্লোন বা চুরি করা হ্যান্ডসেটে মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধের লক্ষ্য ধরা হয়েছে ২০২১ সালের ৯ জুন।

বুধবার এই প্রযুক্তি সরবরাহ ও পরিচালনাকারী কোম্পানি সিনেসিস আইটি তাদের কর্মপরিকল্পনায় এই সময়সীমার কথা জানায়। কোম্পানিটির সঙ্গে এই কাজে জয়েন ভেঞ্চারে এর সঙ্গে রয়েছে রেডিসন টেকনোলজি ও কম্পিউটার ওয়ার্ল্ড।

এদিন বিটিআরসির সম্মেলনকে কক্ষে এক অনুষ্ঠানে বিটিআরসির সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে কোম্পানিটি।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান মোঃ জহুরুল হক ও স্পেকট্রাম বিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ শহীদুল আলমের উপস্থিতিতে কমিশনের তরঙ্গ ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক লেঃ কর্নেল মোঃ ফয়সল এবং সিনেসিস আইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোহরাব আহমেদ চৌধুরী নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি স্বাক্ষরের এই দিন হতেই ১২০ কার্যদিবসের মধ্যে ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেনটিটি রেজিস্টার (এনইআইআর) কার্যক্রম চালুর কথা। বিটিআরসি চাইছে এই ১২০ দিন মানে ২০২০ সালের এপ্রিলের মধ্যেই যেন কার্যক্রম চালু হয়ে যায়।

তবে কোম্পানিটি বলছে করোনাকালীন বাস্তবতা ও কার্যক্রমের ব্যাপ্তির নিরিখে এটি চালুতে বাড়তি সময় যদি লাগে এই ডেটলাইন সর্বোচ্চ।

ইনিশিয়েশন এবং সিস্টেম ডিজাইন, হার্ডওয়্যার প্রকিউমেন্ট এবং কমিশনিং, ডেভেলমেন্ট, দেশি-বিদেশী ট্রেইনিং- এই ধাপগুলো শেষে পদ্ধতিটি চালু হবে বলে জানায়

কাজ পাওয়া কোম্পানির এই ভেঞ্চার প্রায় ৩০ কোটি টাকায় এই কাজ করবে। এরমধ্যে ২৩ লাখ ৯ হাজার ৪৬৯ মার্কিন ডলার এবং ১০ কোটি ২ লাখ ৯২ হাজার ৯৫০ টাকা রয়েছে।

এনইআইআর চালুর পর হতেই অবৈধ পথে দেশে আসা, ক্লোন বা চুরি করা হ্যান্ডসেটে মোবাইল নেটওয়ার্কে যোগাযোগ করা যাবে না। মানে এসব ফোনে এনইআইআর চালুর কিছুদিনের মধ্যে একদমই কোনো মোবাইল ফোন অপারেটরের সিম চলবে না।

অনুষ্ঠানে মোঃ জহুরুল হক বলেন, এনইআইআর সিস্টেম চালু হলে সরকার প্রতিবছর চার হাজার কোটি টাকার মত বাড়তি রাজস্ব পাবে। চুক্তি পাওয়া প্রতিষ্ঠান চুক্তির শর্ত মোতাবেক যথাসময়ে কাজ শেষ করবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ শহীদুল আলম এনইআইআর সিস্টেমের কারিগরি বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন এবং আশা প্রকাশ করেন সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে মোবাইল অপারেটরদের প্রয়োজনীয় ও দ্রুত সহযোগিতা পাওয়া গেলে সফলভাবে সেবাটি চালু হবে।

অনুষ্ঠানে এনইআইআর প্রযুক্তি চালুতে নিয়ন্ত্রক সংস্থার কার্যক্রমের বিস্তারিত জানান স্পেকট্রাম বিভাগের উপ-পরিচালক সনজিব কুমার সিংহ এবং গণমাধ্যম শাখার উপ-পরিচালক জাকির হোসেন খাঁন।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিটিআরসির ভাইস-চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র, কমিশনার ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মুহিউদ্দিন আহমেদ, কমিশনের বিভিন্ন বিভাগের মহাপরিচালক ও পরিচালকরা, সিনেসিস আইটির মহাব্যবস্থাপক ও হেড অব বিজনেস তানভীর আলম এবং মহাব্যবস্থাপক মোঃ আমিনুল বারী শুভ্র।

যেভাবে কাজ করবে এনইআইআর :

নক অটোমেশন অ্যান্ড আইএমইআই ডেটাবেইজ (এনএআইডি) সিস্টেমে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ কোটি আইএমইআই্ নম্বর সংযোজন হয়েছে।

এই সিস্টেমের আইএমইআইসমূহ, মোবাইল অপারেটরের  ইআইআর এবং বিটিআরসিতে স্থাপিত জাতীয় পর্যায়ের কেন্দ্রীয় এনইআইআর একটি সমন্বিত সিস্টেম হিসেবে কাজ করবে। এনইআইআর সিস্টেমটি সরাসরি প্রত্যেক মোবাইল অপারেটরের নিজ নিজ ইআইআরের সাথে সংযুক্ত থাকবে।

গ্রাহকদের মোবাইল ফোন হ্যান্ডসেট স্বয়ংক্রিয়ভাবে মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে নিবন্ধিত হয়ে চালু হবে। এনইআইআর সকল হ্যান্ডসেটের বৈধতা যাচাইয়ের মাধ্যমে মোবাইল ফোন হ্যান্ডসেটের চালুর বিষয়ে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত দেবে।

বিদেশ হতে আনা হ্যান্টসেটের ক্ষেত্রে কী হবে ?

বিদেশ থেকে নিয়ে আসা হ্যন্ডেসেট গ্রাহকের আবেদনের প্রেক্ষিতে এনইআইআর এর ওয়েব পোর্টালের মাধ্যমে কেনার রশিদ যাচাই করে এবং যে সকল সেট উপহার হিসেবে দেশে এসেছে তা যথেষ্ট প্রমাণ যাচাই-বাছাই করে বিটিআরসির সিদ্ধান্তে এনইআইআরে সক্রিয় করা হবে।

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + 9 =

Back to top button