খেলাধুলাফুটবল

উরুগুয়ের মাঠে দাপুটে জয়, বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে শীর্ষে ব্রাজিল

লাতিন আমেরিকা অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে প্রথম তিন ম্যাচ জিতে সুবিধাজনক অবস্থানে ছিল শক্তিশালী দল ব্রাজিল। তবে সে তিন ম্যাচের প্রতিপক্ষ ছিল তুলনামূলক সহজ। তাই উরুগুয়ের বিপক্ষে চতুর্থ ম্যাচটি ছিল বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ব্রাজিলের বড় পরীক্ষা।

ম্যাচটি আবার উরুগুয়ের ঘরের মাঠে হওয়ায় বেড়ে গিয়েছিল ব্রাজিলের চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে জয় তুলে নিতে একদমই ভুল করেনি তিতের শিষ্যরা। উরুগুয়েকে তাদেরই মাঠে ২-০ গোলে হারিয়ে চার ম্যাচে চতুর্থ জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

একের পর এক ইনজুরি, সঙ্গে আবার করোনাভাইরাসের ছোবল- ব্রাজিল ও উরুগুয়ের মধ্যকার ম্যাচটিতে সেরা একাদশ নামাতে পারেনি কোন দলই। তবু যাদের ওপর আস্থা রেখেছেন ব্রাজিল কোচ তিতে, তারা দিয়েছেন পূর্ণ প্রতিদান। যার ফলে এসেছে দুর্দান্ত এক জয়।

এদিন চোটের কারণে ব্রাজিল দলে ছিল না নেইমার, ফিলিপে কৌতিনিয়ো ও ফাবিনিয়ো। আর করোনাভাইরাসের আক্রান্ত হয়ে মাঠের বাইরে কাসেমিরো। কোভিড-১৯ এর আঘাতে উরুগুয়েও হারায় তাদের সেরা তারকা লুইস সুয়ারেসকে। পুরো ম্যাচ তাদের অনুপস্থিতি চোখে পড়েছে বেশ।

ম্যাচের শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার ভালো সুযোগ পেয়েছিল উভয় পক্ষ; কিন্তু সে যাত্রায় মেলেনি জালের দেখা। তৃতীয় মিনিটে গাব্রিয়েল জেসুসের দুরূহ কোণ থেকে নেওয়া শট ঠেকান উরুগুয়ের গোলরক্ষক। দুই মিনিট পর দারউইন নুনেসের জোরালো শট ক্রসবারে লাগলে বেঁচে যায় ব্রাজিল।

মাঝে খানিকটা এলোমেলো ফুটবলের পর বিরতির আগের ১৫ মিনিটে ব্রাজিলের খেলা ছিল বেশ গোছালো। ৩৪তম মিনিটে সৌভাগ্যের ছোঁয়ায় এগিয়েও যায় তারা। জেসুসের পাস পেয়ে ইউভেন্তুস মিডফিল্ডার আর্থারের দূর থেকে নেওয়া শট ডিফেন্ডার জোসে হিমেনেসের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। গোলরক্ষকের কিছুই করার ছিল না।

দুই মিনিট পর দারুণ পাল্টা আক্রমণে ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারতো তারা। কিন্তু আর্থারের থ্রু পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে রবের্তো ফিরমিনোর নেওয়া শট ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক মার্তিন কাম্পানিয়া।

৪৫তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রিশার্লিসন। ছোট করে নেওয়া কর্নারের পর সতীর্থের পা ঘুরে ডি-বক্সে ক্রস বাড়ান রেনান লোদি। লাফিয়ে হেডে ঠিকানা খুঁজে নেন এভারটন ফরোয়ার্ড।

বিরতির ঠিক আগে ভাগ্যের ফেরে আরও একবার গোল না পাওয়ার হতাশা যোগ হয় উরুগুয়ে শিবিরে। দিয়েগো গদিনের হেড ক্রসবারে ওপরের দিকে লেগে চলে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে চাপ বাড়ানোর চেষ্টা করে উরুগুয়ে। বেশ কয়েকটি ভালো আক্রমণও করে তারা; কিন্তু সাফল্য অধরাই রয়ে যায়। উল্টো ৭৩তম মিনিটে বড় থাক্কা খায় দলটি। খানিক আগের এক ঘটনায় রিশার্লিসনকে পেছন থেকে ফাউল করায় ভিএআরের সাহায্যে এদিনসন কাভানিকে সরাসরি লাল কার্ড দেখান রেফারি।

এক জন কম নিয়ে বাকি সময়ে ঘুরে দাঁড়ানোর তেমন কোনো সম্ভাবনাই জাগাতে পারেনি উরুগুয়ে। এই অর্ধে নিশ্চিত কোনো সুযোগ তৈরি করতে পারেনি ব্রাজিলও।

চার ম্যাচে চার জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে ব্রাজিল।

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

9 − four =

Back to top button