Home / Lead News / টাঙ্গাইলে স্কুল শিক্ষক ও তার স্ত্রী হত্যা মামলায় ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

টাঙ্গাইলের সদর থানার রসুলপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষক অনিল কুমার দাস ও তার স্ত্রী কল্পনা রানীকে সম্পত্তির জন্য হত্যা করার অভিযোগে ছয়জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ রবিবার (১৩ই সেপ্টেম্বর) দুপুরে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামানের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- স্বপন কুমার দাস, জাহিদুল ইসলাম, ফরহাদ, মনিরুজ্জামান ভুইয়া, মঞ্জুরুল ইসলাম ও শয়ান মিয়া।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ভিকটিম অনিল কুমারের সৎ ভাই স্বপন কুমার দাস অন্যান্য আসামিদের সঙ্গে যোগসাজশে পূর্বপরিকল্পিতভাবে সম্পত্তি আত্মসাতের জন্য কৌশল অবলম্বন করতে থাকেন। স্বপন কুমার দাসের সঙ্গী মাদকসেবী মনিরুজ্জামান, ফরহাদ, মঞ্জুরুল, জাহিদ ও শয়ান মিয়া ভিকটিম অনিল কুমারের সম্পত্তি আত্মসাৎ করার তিনটি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়ার পরিকল্পনা করেন।

২০১৭ সালের ২৬শে জুলাই টাঙ্গাইলের রসুলপুরের বাসায় পূর্বপরিকল্পিতভাবে ভিকটিম অনিল কুমার দাস ও তার স্ত্রী কল্পনা দাসকে হত্যা করে। হত্যার পর তাদের মরদেহ বস্তায় ভরে বাসার বাথরুমের সেফটি ট্যাঙ্কের ভেতর ফেলে রাখে। এরপর পুলিশ এসে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় ভিকটিম অনিল কুমারের ছেলে নির্মল কুমার দাস বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর খানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ২০১৮ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ভিকটিম অনিল কুমারের সৎ ভাই স্বপন কুমারসহ ৬ জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

Check Also

পচা পেঁয়াজ ফিরিয়ে নিল ভারত

বাংলাদেশর ব্যবসায়ীরা ভারতের পেঁয়াজ নিয়ে নানা ধরণের সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। হুট করে বিনা নোটিশে পেঁয়াজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 4 =