Lead Newsআন্তর্জাতিক

টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলো ওবামা, বিল গেটস সহ আরও প্রভাবশালীর

হ্যাকিংয়ের শিকার হয়েছেন ওবামা, আমেরিকার বর্তমান প্রেসিডেন্ট প্রতিদ্বন্দ্বী জো বিডেন, মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস, টেসলার সিইও ইলন মাস্ক, অ্যামাজন কর্তা জেফ বেজোস, সঙ্গীতশিল্পী কেইন ওয়েস্ট সহ আরও অনেক প্রভাবশালী ব্যক্তিবর্গ। বিটকয়েনে বিনিয়োগের মিথ্যা টোপ দেখিয়ে তাদের কয়েকজনের অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানা যায়৷

‘আপনি আমায় ১০০০ ডলার পাঠান, আমি আপনাকে ২০০০ ডলার ফেরত দেব।’ এই বার্তা টি সকলের ভেরিফায়েড টুইটার হ্যান্ডেল থেকেই ছড়িয়েছে নেট দুনিয়ায়। যা নিয়ে রীতিমতো সাড়া পড়ে গিয়েছে গোটা বিশ্বে। পরে টুইটার জানিয়েছে, বিশ্বের বহু হাইপ্রোফাইল ব্যক্তির টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়েছে, সে কারণেই এমন মেসেজ ছড়িয়ে পড়েছে।

ভার্চুয়াল দুনিয়ায় হ্যাকিং অত্যন্ত পরিচিত শব্দ। এর আগে হ্যাকাররা বহু বড় বড় ঘটনার জন্ম দিয়েছে। তবে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের টুইটার একাউন্ট হ্যাক করে ক্রিপ্টো কারেন্সির বিনিয়োগের এমন আবেদন অভিনব বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

ঘটনার সূত্রপাত বুধবার। বিল গেটস, ইলন মাস্ক, সিলিকন ভ্যালির সংস্থা অ্যাপেল, সকলেরই টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়। বারাক ওবামা, জো বিডেনের মতো রাজনীতিবিদরাও বাদ যাননি হ্যাকিং এর কবল থেকে। সকলের টুইটার থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হয়েছে, আধঘণ্টার মধ্যে যদি বিট কয়েন বা ক্রিপ্টো কারেন্সির মাধ্যমে তাঁদের এক হাজার ডলার দেওয়া হয়, তা হলে দ্রুত তা দ্বিগুণ হয়ে যাবে। বিট কয়েন বা ক্রিপ্টো কারেন্সি হলো এক ধরনের ভার্চুয়াল কয়েন যার মাধ্যমে ভার্চুয়াল জগতে টাকার আদানপ্রদান করা হয়। বিশ্বের অনেক দেশে এই ধরনের কারেন্সি নিষিদ্ধ। বলা হয়, এ ধরনের আদানপ্রদান গোপন রাখার জন্য পুরো বিষয়টি এনক্রিপ্ট করে রাখা হয়। অনলাইন জুয়াতেও এই ধরনের কারেন্সির বিপুল ব্যবহার হয়ে থাকে।

কিন্তু বুধবার নেট দুনিয়া আশ্চর্য হয়। কারণ, প্রভাবশালী ব্যক্তিরা এবং কয়েকটি সংস্থা ওই কারেন্সির মাধ্যমেই অর্থ দাবি করেন। অনেকেই মনে করেন এটা একটা নতুন খেলা। তবে বিষয়টি ছড়িয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই কেউ কেউ টুইট করে জানিয়ে দেন, এটা একটা স্ক্যাম এবং কেউ যেন এই ফাঁদে পা না দেন।

পরবর্তীতে, টুইটার পোস্ট করে জানিয়ে দেয় যে, বহু প্রভাবশালী ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট হ্যাক করা হয়েছে।
কী ভাবে এই ঘটনা ঘটল, কারা এমন কাজ করল তা নিয়ে তদন্ত হচ্ছে। বহু গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির টুইটার একাউন্ট সাময়িক ভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

টুইটার আরও জানায়, যাদের একাউন্ট হ্যাক হয়েছে তারা বর্তমানে টুইট করতে পারবেন না, পাসওয়ার্ডও বদলাতে পারবেন না। সকলের অ্যাকাউন্টই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বোঝার চেষ্টা হচ্ছে, কী ভাবে এই ঘটনা ঘটানো হলো, আর কারা ঘটালো।

উল্লেখ্য, বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি জেফ বেজোস। বিশ্বের শীর্ষ ধনকুবেরদের তালিকায় নাম রয়েছে বিল গেটস এবং ইলন মাস্কেরও৷ মনে করা হচ্ছে, বিটকয়েন কেলেঙ্কারির সঙ্গে এই হ্যাকিংএর যোগসূত্র রয়েছে৷

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টুইটার এখন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্লাটফর্ম। রাজনীতিবিদ থেকে সেলিব্রিটি, শিল্পপতি সকলেই টুইট করে নিজেদের মতামত প্রকাশ করেন। প্রভাবশালী ব্যক্তিদের ভেরিফাইড অ্যাকাউন্ট তৈরির সুযোগ দেয় টুইটার। এই ঘটনায় টুইটারের ভাবমূর্তি ও বিশ্বাসযোগ্যতা বিরাট ধাক্কা খাবে, তেমনটাই ধারনা বিশেষজ্ঞদের।

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 1 =

Back to top button
Close