Breakingআন্তর্জাতিক

হজে কাবার নিরাপত্তায় প্রথমবারের মতো নারী সৈনিক

বাবার থেকেই অনুপ্রাণিত হয়ে সামরিক বাহিনীতে যোগ দিয়েছিলেন সৌদি নারী মুনা। বর্তমানে তিনি মক্কার মসজিদুল হারামে নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন।

খাকি পোশাক ও হিজাবসহ কালো ব্যারে ক্যাপ পরে কাবা চত্ত্বরে দায়িত্ব পালনরত মুনা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘মক্কার মসজিদুল হারামের মতো পবিত্র স্থানের নিরাপত্তায় দাঁড়িয়ে আমি আমার মরহুম বাবার পথকে অনুসরণ করছি। জেয়ারতকারীদের জন্য এই সেবা পবিত্র ও সম্মানজনক দায়িত্ব।’

গত এপ্রিল থেকে মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদীনার মসজিদে নববীতে প্রথমবারের মতো নিরাপত্তায় সৌদি সামরিক ও নিরাপত্তা বাহিনীর নারী সদস্য মোতায়েন করা হয়। ওই ব্যবস্থাপনার অংশ হিসেবে হজে প্রথমবারের মতো কাবা চত্ত্বরে নিরাপত্তায় দায়িত্ব পালন করলেন নারী প্রহরীরা।

অপর এক নারী সৈনিক সামার রয়টার্সকে বলেন, ‘আমাদের জন্য এটি বিশাল অর্জন। একই সাথে দ্বীন, দেশ ও আল্লাহর ঘরে আসা মেহমানদের খেদমত করতে পারা বিপুল গৌরবের।’

সৌদি আরবে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নেয়া সংস্কার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বিভিন্ন পেশাগত দায়িত্বে নারীর অংশ গ্রহণের সুযোগ তৈরি ও বাড়ানো হয়েছে। এই পরিকল্পনায় মসজিদুল হারামের নিরাপত্তায় প্রথমবারের মতো সামরিক ও নিরাপত্তা বাহিনীর নারী সদস্যদের মোতায়েন করা হয়।

বর্তমানে ১৮ সদস্যের মোট চার নারী সৈনিকের দল চার শিফটে মসজিদুল হারামে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছেন।

সূত্র : রয়টার্স ও গালফ নিউজ

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − three =

Back to top button