Lead Newsধর্ম ও জীবন

ইংরেজি নববর্ষ ও থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন; ইসলাম কী বলে?

ইংরেজি নতুন বছর শুরু। তার আগে ডিসেম্বরের একত্রিশতম রাত যেটি খ্রিষ্টীয় বছরের শেষ রাত তথা থার্টি ফার্স্ট নাইট। তো এখনকার জন্য খুবই সময়োচিত একটি প্রশ্ন হচ্ছে, মুসলিম হিসেবে এই থার্টি ফার্স্ট নাইট ও ইংরেজি ‘নিউ ইয়ারে’ আমাদের কী করণীয়? আর বর্জণীয়ই বা কী? আসুন, সমসাময়িক এ বিষয়ে আলোকপাত করা যাক বিস্তারিত।

একজন খাঁটি মুসলমান হিসেবে প্রথমেই বিগত বছরে শয়তানের প্ররোচনায় আমার নিজের দ্বারা কী কী অন্যায়-সীমালঙ্ঘন হয়েছে, সেজন্য অনুশোচনা থাকতে হবে। আত্মসমালোচনাও করতে হবে।

কিন্তু বাস্তবে দেখা যায়, আমরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অনুশোচনা-আত্মসমালোচনা করছি না! বরং সমাজের একটা বড় অংশ মিলে হৈ-হুল্লোড় করে শয়তান ও তার দোসরদের পদাঙ্ক অনুসরণ করে মনে-প্রাণে ইহুদি খ্রিষ্টানদের সংস্কৃতি লালন করছি!

আমি তো মুসলিম হিসেবে নিজের পরিচয় বেমালুম ভুলে গিয়ে তাদের এই ঘৃণ্য অপসংস্কৃতিকে চরম সভ্যতা মনে করছি! নিজের মুসলিম সভ্যতাকে লালন না করে, আপন মনে না করে, নিজের আপনালয়কে না সামলে তাদের ঘৃণ্য অপসংস্কৃতিকে আপন মনে করছি।

শুধু তাই নয়, ভিনদেশি ও ভিন্নচেতনার ঐসব কৃষ্টি-কালচারকে পালনীয় ও অনুসরণীয় হিসেবে মেনে নিয়ে প্রাউড ফীল করছি! ছি,ছি, বড্ডো আফসোস! আমি কী সত্যই মুসলমান! আমি কী আসলেই আল্লাহতা’য়ালার কাছে আত্মসমর্পণকারী! অথচ রাসূলুল্লাহ (সা:) বলেছেন, যে ব্যক্তি কোনো জাতির অনুসরণ করবে সে তাদের অন্তর্ভুক্ত হবে (সহীহ/বুখারী)।

মূলত যে নিজেকে রাসুল (সা:) এর উম্মত বলে দাবি করে, তার উচিত রসূল (সা:) যা কিছু করেছেন তা অনুসরণ করা, আর যা করেননি তা এড়িয়ে চলা। সূরা আল হাশরে আল্লাহ্পাক বলেছেন, “রসূল তোমাদেরকে যা দেন, তা গ্রহণ কর এবং যা নিষেধ করেন, তা থেকে বিরত থাক এবং আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ কঠোর শাস্তিদাতা।” (আয়াত ৭)

প্রকৃতপক্ষে ইসলাম দুনিয়াবি দিবস পালন করা সমর্থন করেনা, যাতে শুধু দুনিয়ার স্বার্থ থাকে আর অপচয় ছাড়া কিছু থাকেনা | যেমনঃ নিউ ইয়ার/নববর্ষ, ম্যারেজ ডে, বার্থ ডে, ভ্যালেন্টাইনস ডে, মিলাদুন্নবী ইত্যাদি। এগুলো রাসুল [সঃ] পালন করেননি, সাহাবীগণও (রা:) করেননি – তাহলে আমরা কেন করবো?

তাছাড়া এসব ইহুদি-খৃষ্টানদের আবিষ্কার। নবী [সঃ] এর অনুস্মরণ না করা এক পাপ, ইহুদিদের অনুস্মরণ অরেক পাপ।

তাই সার্বিকভাবে বলা চলে ইসলামিক দিবসের পালন ও এসব দিবসের উইশ এসএমএস পাঠিয়ে করতে পারেন – যে দিবসগুলো রাসুল [সঃ] পালন করেছেন, সাহাবীরা করেছেন। যেমনঃ জুম্মা ডে, ঈদ ডে ইত্যাদি।

লেখক: শায়খ আব্দুস সালাম মাদানী
অধ্যক্ষ, আস-সুন্নাহ কমপ্লেক্স
মোহাম্মদপুর, ঢাকা

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 + thirteen =

Back to top button