Lead Newsশিল্প ও বাণিজ্য

করোনাকালেও জনশক্তি রপ্তানিতে নতুন রেকর্ড

চলমান করোনা মহামারির মধ্যেও গেলো নভেম্বরে বৈদেশিক কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে। এই এক মাসে সরকারের ছাড়পত্র নিয়ে ১ লাখ ২ হাজার ৮৬৩ জন কর্মী বিদেশে গেছেন, যা করোনার গত দুই বছরে সর্বোচ্চ কর্মসংস্থান।

এক বিজ্ঞপ্তিতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানিয়েছে। এতে বলা হয়, চলতি বছরের সদ্য সমাপ্ত নভেম্বর মাসে ১ লাখ ২ হাজার ৮৬৩ জন কর্মী জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি)র ছাড়পত্র নিয়ে বিদেশে গেছেন।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সাম্প্রতিক এ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বৈশ্বিক করোনা মহামারির মধ্যেও এক মাসে বৈদেশিক কর্মসংস্থান সৃষ্টির নতুন রেকর্ড এটি। এর আগে ২০১৭ সালের মার্চ মাসে ১ লাখের বেশি কর্মী বিদেশে গিয়েছিলেন। আবার ওই বছর বিদেশে গিয়েছিলেন মোট ১০ লাখ ৮ হাজার ৫২৫ জন, যা এখন পর্যন্ত জনশক্তি রপ্তানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় রেকর্ড।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এর পরের বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে বিদেশে যান ৭ লাখ ৩৪ হাজার এবং ২০১৯ সালে ৭ লাখ কর্মী। কিন্তু এরপর বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি শুরু হলে কড়াকড়ি তথা বিধিনিষেধ আরোপ করে বেশিরভাগ দেশ। ফলে ২০২০ সালে বৈদেশিক কর্মসংস্থান একেবারে থমকে যায়। তবে তারপরও গত বছর ২ লাখ ১৭ হাজার কর্মী বিদেশে যান।

সেই তুলনায় চলতি বছরের পরিস্থিতি অনেক ভালো বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। বিএমইটি সূত্রে জানা গেছে, চলতি ২০২১ সালের ১১ মাসে, নভেম্বর পর্যন্ত, ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৮৯৫ জন কর্মী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গেছেন। চলতি বছর সাড়ে ৫ লাখ লোকের বিদেশে কর্মসংস্থান হওয়া আশা করছে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও বিএমইটি। সেটা সম্ভব হলে এই খাতে মোটামোটি স্বাভাবিক অবস্থা চলে আসবে।

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

18 − thirteen =

Back to top button