শিল্প ও বাণিজ্য

ইভ্যালি, ধামাকাসহ ৪ প্রতিষ্ঠানের সদস্য পদ স্থগিত করেছে ই-ক্যাব

ইভ্যালি, ধামাকা, সিরাজগঞ্জ শপ ও গ্লিটার্সের সদস্য পদ স্থগিত করেছে ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)।

গতকাল বুধবার সংগঠনটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ই-ক্যাবের সদস্যভূক্ত ৪টি অনলাইন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিতের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো, ইভ্যালি ডট কম লিমিটেড, ধামাকা শপিং (ইনভেরিয়েন্ট টেলিকম লি:), সিরাজগঞ্জ শপ ও গ্লিটার্স আরএসটি ওয়ার্ল্ড।

গত মঙ্গলবার ই-ক্যাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের সভায় প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্যপদ বাতিলের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। এর আগে গত ১৮ আগস্ট ৪টি প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছিল। সাম্প্রতিক সময়ে অভিযোগ ও নজরদারীর ভিত্তিতে ই-ক্যাব বিভিন্ন অভিযোগে ৮টি প্রতিষ্ঠানের সদস্যপদ স্থগিত করেছে।

ই-ক্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয় অন্যান্য অভিযুক্ত অন্যান্য প্রতিষ্ঠানগুলোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য ই-ক্যাব ১১ সদস্যের একটি কমপ্লায়েন্স এ্যাডভাইজারি কমিটি গঠন করে। এই কমিটি অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর সদস্যপদ স্থগিতের সুপারিশ করে।

প্রতিষ্ঠানসমূহের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে সেগুলো হলো:
ইভ্যালি দীর্ঘদিন ধরে বার বার সময় নেয়ার পরও ক্রেতাদের সমস্যার সমাধান না করা, ই-ক্যাবকে চাহিদা মোতাবেক তথ্য না দেয়া, ডিজিটাল কমার্স নির্দেশিকা-২০২১ পরিপূর্ণভাবে প্রতিপালন না করা ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের পাওনা পরিশোধের বিষয়ে সন্তোষজনক পদক্ষেপ গ্রহণ না করা ইত্যাদি অভিযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে। ক্রেতা সাধারণের পাওনার কথা বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠানটির সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

ধামাকা শপিং কয়েকমাস অতিবাহিত হওয়ার পরও ক্রেতাদের পণ্য বা মূল্যফেরত না দেয়া এবং ক্রেতা ও সরবরাহকারীদের অভিযোগসমূহের সমাধানে সুনির্দিষ্ট তারিখ ঘোষণা না করা ও ক্রেতা-বিক্রেতাদের পাওনা পরিশোধে দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ না করা ও অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য ব্যবসায়িক কার্যক্রম বন্ধ রাখার অভিযোগে সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ শপ ই-ক্যাবের পত্রের জবাব না দেয়া, অভিযোগসমূহ নিষ্পত্তি ও ডিজিটাল কমার্স নির্দেশিকা-২০২১ প্রতিপালন এর বিষয়ে পদক্ষেপ প্রহণ না করা, এসম্পর্কিত তথ্য প্রদান না করাসহ ও সাম্প্রতিকসময়ে গ্রাহকের অর্থ ফেরত না দেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে। গ্লিটার্স আরএসটি ওয়ার্ল্ড, প্রতিষ্ঠানটি ই-কমার্সের নামে বেআইনি এমএলএম ব্যবসার সাথে জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির সদস্যপদ স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।

এসব প্রতিষ্ঠানকে ক্রেতা ও মার্চেন্টদের পাওনা পরিশোধ, নির্দেশিকা বাস্তবায়ন ও অন্যান্য অভিযোগ নিষ্পত্তি করে ৩০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন পেশ করতে বলা হয়েছে। অন্যথা অভিযোগের বিশ্লেষণ ও পরিস্থিতি বিবেচনায় প্রতিষ্ঠানসমূহের সদস্যপদ বাতিল করা হতে পারে।

ই-ক্যাব তার সদস্য প্রতিষ্ঠানসহ সকল ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানকে ‘‘ডিজিটাল কমার্স পরিচালনা নিরর্দেশিকা ২০২১‘’ প্রতিপালন করে ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনার অনুরোধ করছে। ক্রেতা-ভোক্তাগণ কোনো প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে প্রতারিত হয়ে থাকলে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ করতে করতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

 

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 3 =

Back to top button