Lead Newsআন্তর্জাতিক

আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তার প্রস্তাব নিরাপত্তা পরিষদে পাস

আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তার ব্যাপারে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে (ইউএনএসসি) সর্বসম্মতভাবে একটি মার্কিন প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এর মাধ্যমে তালেবানদের ওপর জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন না করে আফগানিস্তানে মানবিক সহায়তা প্রদানের দরজা খুলে গেল।

দ্য ডন জানায়, প্রস্তাবটি পাসের মাধ্যমে আফগানিস্তানের জনগণের মানবিক সহায়তায় তহবিল গঠন কার্যক্রম সমর্থন করার জন্য প্রয়োজনীয় পণ্য ও পরিষেবার বিধান অনুমোদন পেল। প্রস্তাবটিতে বলা হয়েছে, এই ধরনের সহায়তা আফগানিস্তানে মৌলিক মানবিক চাহিদা পূরণের পদক্ষেপকে সমর্থন করে। তবে তার মানে এই নয় যে, তালেবানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা উঠে গেল।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, ওয়াশিংটনে ইউএস ট্রেজারি অফিস অফ ফরেন অ্যাসেট কন্ট্রোল (ওএফএসি) বুধবার তিনটি সাধারণ লাইসেন্স জারি করেছে। এগুলো আফগান জনগণের জন্য অত্যাবশ্যক সহায়তা এবং সমর্থন অব্যাহত রাখার সুবিধার্থে করা হয়েছে, যা আফগান জনগণের জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের গৃহীত প্রস্তাবের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

ইউএনএসসি রেজুলেশনটির (প্রস্তাব) খসড়া তৈরি করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের ভোটে তা সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে। মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর জানিয়ছে, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞাগুলো হুমকি এবং মানবাধিকার লঙ্ঘনের প্রতিক্রিয়া জানাতে একটি গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার। তবে নিষেধাজ্ঞাগুলো আফগান জনগণকে জরুরিভাবে প্রয়োজনীয় সাহায্য বিতরণে বাধা সৃষ্টি করবে না।

নিউইয়র্কে সংবাদ ব্রিফিংয়ে জাতিসংঘে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত মুনির আকরাম বলেন, প্রস্তাবটি স্পষ্ট করে দিয়েছে আফগানিস্তানে মৌলিক মানবিক চাহিদা সমর্থনকারী কার্যক্রম নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞার বিধানের লঙ্ঘন নয়।

ওয়াশিংটনের বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, রেজুলেশনটি তালেবানের উপকার না করে আফগানিস্তানে মানবিক বিপর্যয় এড়াতে সহায়তা করতে পারে। ১৫ আগস্ট তালেবান ক্ষমতা নেয়ার পর আফগানিস্তান অর্থনৈতিক মন্দার মুখোমুখি হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানের ৯.৫ বিলিয়ন সম্পদ স্থগিত করে তালেবানের ওপর প্রতিশোধ গ্রহণ করে।

জাতিসংঘে চীনের রাষ্ট্রদূত ঝাং জুন এক টুইট বার্তায় বলেছেন, মানবিক সহায়তা এবং জীবনরক্ষাকারী সহায়তা অবশ্যই আফগান জনগণের কাছে কোনো বাধা ছাড়াই পৌঁছানো সক্ষম হবে। এ ব্যাপারে আমরা চীন এবং রাশিয়াকেও ধন্যবাদ জানাই।

তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ বলেছেন, “আমরা এর প্রশংসা করি। এটি আফগানিস্তানের অর্থনৈতিক পরিস্থিতিকে উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। আশাকরি, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় অর্থনৈতিক এবং ব্যাংকিং নিষেধাজ্ঞাগুলো দ্রুত অপসারণ করবে৷”

এই জাতীয় আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen + 10 =

Back to top button